মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা

প্রায় প্রতি বছরই অতি বৃষ্টি ও আগাম বন্যায় সিলেট বিভাগের বিস্তীর্ণ হাওরাঞ্চলের বোরো ধানের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। আগাম বন্যা হতে হাওরের বোরো ফসল রক্ষার্থে “হাওর এলাকায় আগাম বন্যা প্রতিরোধ ও নিষ্কাশন উন্নয়ন (২য় সংশোধিত)” শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ম্যাথমেটিক্যাল ও ফিজিক্যাল মডেল স্টাডির সংস্থান রাখা হয়েছে। এ স্টাডির কাজ বাস্তবায়নের নিমিত্তে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। স্টাডি শেষে বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণসহ খাল পুনঃ খনন, নদী খনন ইত্যাদি আইটেমসমূহ অর্ন্তভূক্ত করে নতুনভাবে ডিপিপি প্রণয়ন করা হবে। তাছাড়াও উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহারের (জিও টেক্সটাইল) ব্যবহারের মাধ্যমে টেকসই বাঁধ নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। 

তাছাড়াও সুনামগঞ্জ জেলার হাওরসমূহের বোরো ফসল রক্ষার্থে নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য ইতোমধ্যে “হাওর এলাকায় পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন ও নৌ-চলাচলের সুবিধার্থে কজওয়ে নির্মাণ” শীর্ষক প্রকল্পটি মন্ত্রনালয়ে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলার অন্যান্য ভরাটকৃত নদ-নদীসমূহ খনন, স্থায়ী তীর প্রতিরক্ষা কাজ ও নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়নের লক্ষ্যে “ সুনামগঞ্জ জেলায় সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সুরমা নদীর তীরে অবস্থিত ধারারগাঁও, মইনপুর, ইব্রাহিমপুর, লঞ্চঘাট, ইনাতনগর, মল্লিকপুর, হব্বতপুর ও জামালগঞ্জ উপজেলা সংলগ্ন এলাকায় উভয় তীরে নদী তীর সংরক্ষণ ও নিষ্কাশন ব্যবস্থাপনা প্রকল্প (১ম পর্যায়)” শীর্ষক ডিপিপি প্রণয়ন পূর্বক দাখিল করা হয়েছে। এসকল প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সম্ভব হলে নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়নসহ আগাম বন্যা হতে বোরো ফসল রক্ষা করা সম্ভব হবে।

তাছাড়াও সুনামগঞ্জ জেলার বিভিন্ন নদী ভাঙ্গন প্রবণ এলাকার জনগণের জানমাল রক্ষার্থে উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় ডিপিপি প্রণয়ন পূর্বক দাখিল করা হয়েছে। ফলে এসকল প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সম্ভব হলে সুনামগঞ্জ জেলায় নদী ভাঙ্গন হতে জনগনের দুর্ভোগ অনেকাংশে লাগব করা সম্ভব হবে। 

প্রক্রিয়াধীন উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (DPP) সমূহের সংক্ষিপ্তসার।

 

ক্রঃ নং

প্রকল্পের নাম

প্রধান প্রধান অঙ্গ সমূহ

মোট প্রাক্কলিত ব্যয়

(লক্ষ টাকায়)

মন্তব্য

১।

হাওর এলাকায় পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন ও নৌ-চলাচলের সুবিধার্থে কজওয়ে নির্মাণ প্রকল্প।

কজওয়ে নির্মাণ-১৭৬ টি।

সংযোগ বাঁধের স্লোপ প্রটেকশন-১৭.৬০ কিমি।

৯১৪৬২.৪২

ডিপিপি পরিকল্পণা প্রক্রিয়াধীন।

২।

সুনামগঞ্জ জেলায় সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সুরমা নদীর তীরে অবস্থিত ধারারগাঁও, মইনপুর, ইব্রাহিমপুর, লঞ্চঘাট, ইনাতনগর, মল্লিকপুর, হব্বতপুর ও জামালগঞ্জ উপজেলা সংলগ্ন এলাকায় উভয় তীরে নদী তীর সংরক্ষণ ও নিষ্কাশন ব্যবস্থাপনা প্রকল্প (১ম পর্যায়)।

সুরমা নদী ড্রেজিং= ১১৫.৮০ কিমি।

নদী তীর সংরক্ষণ কাজ = ৫.৩০ কিমি।

কজওয়ে নির্মাণ= ১টি (৬ মিটার)।

রেগুলেটর নির্মাণ=১টি (৪ ভেন্ট)

৩১৭৮৫.৫১

ডিপিপি দাখিল করা হয়েছে।

৩।

বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল এ অবস্থিত সিলেট বিভাগাধীন বাপাউবোর বিভিন্ন হাইড্রলিক অবকাঠামোসমূহের পূনর্বাসন প্রকল্প।

পুরাতন রেগুলেটর/পাইপ স্লইস/পাইপ ইনলেট/পাইপ আউটলেট/কজওয়ে ইত্যাদি অবকাঠামোসমূহের মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ।

সুনামগঞ্জ জেলা-৭৪টি।

২৪৫৭.০০

ডিপিপি দাখিল করা হয়েছে।

৪।

সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার ও ছাতক উপজেলার আওতাধীন সুরমা নদীর ডানতীরে অবস্থিত দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ও অন্যান্য এলাকায় নদীতীর সংরক্ষণ প্রকল্প।

সুরমা নদী ড্রেজিং= ২৭.০০ কিমি।

নদী তীর সংরক্ষণ কাজ = ৩.২৭ কিমি।

১৯৯৭৪.০০

ডিপিপি পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ে প্রক্রিয়াধীন।

৫।

সুনামগঞ্জ জেলায় কালনী নদীর উভয় তীরে চাপতির হাওরের বৈশাখী ক্লোজার, বরাম হাওরের তুফানখালী, বোয়ালিয়া বাঁধ, গরুচরা বাঁধ এবং ধলবাজার নামক স্থানে স্থায়ী নদী তীর সংরক্ষণ প্রকল্প।

নদী তীর সংরক্ষণ কাজ = ১.৩০৩ কিমি।

৭১৬৮.০০

ডিপিপি বোর্ডে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

 

 

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter